Skip to main content

বিপিএলের মাঝপথে চোট পেলেন মাশরাফি

বিপিএলের মাঝপথে চোট পেলেন মাশরাফি

ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই মাশরাফি বিন মুর্তজার সবচেয়ে বড় শত্রু চোট। এই সমস্যার কারণে, লম্বা ক্যারিয়ারে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ আর টুর্নামেন্ট  মিস করেছেন তারকা এই পেসার। এখনো চোট সমস্যা থেকে রেহাই পাচ্ছেন না তিনি। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) খেলার সময় আবারো চোটে পড়লেন মাশরাফি। যে কারণে টুর্নামেন্টের বাকি ম্যাচগুলোতে তার খেলা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে।

বিপিএলে খুলনা টাইগার্সের বিপক্ষে ম্যাচে খেলার সময় কুঁচকিতে চোট পেয়েছেন মাশরাফি। সেই চোটের কারণে, পরের ম্যাচে রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে মাঠে নামেননি তিনি। দলের পক্ষ অধিনায়কের চোটের বিষয়ে কথা বলেছেন, সিলেট স্ট্রাইকার্সের প্রধান কোচ রাজিন সালেহ। গণমাধ্যমকে তিনি জানান, গ্রুপপর্বের বাকি ম্যাচগুলোতেও খেলতে পারবেন না মাশরাফি। এমনকি প্লে – অফের ম্যাচেও তার খেলা নিয়ে আছে সংশয়।

এ প্রসঙ্গে রাজিন বলেন, ” কুঁচকির চোটে ভুগছেন মাশরাফি। এজন্য গ্রুপপর্বের বাকি ম্যাচে তিনি খেলতে পারবেন না। প্লে – অফের ম্যাচগুলোতেও আমরা তাকে পাবো কি না, সেটা নিশ্চিতভাবে বলতে পাছি না। ফিজিও বলেছেন, এই ধরনের চোট থেকে সেরে ওঠতে ১০ থেকে ১২ দিন সময় লাগে। মাশরাফিও তার নিজের অবস্থা সম্পর্কে বুঝতে পারছেন। তবে আমরা আশা রাখছি, প্লে – অফের ম্যাচে তিনি সিলেটের জার্সিতে মাঠে নামবেন। “

এবারের বিপিএলে এখন পর্যন্ত ভালো ছন্দে আছেন মাশরাফি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিজেকে গুটিয়ে নেওয়া এই পেসার, এখনো রাজত্ব করে চলেছেন সেরাদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে। সিলেটের জার্সিতে এখন পর্যন্ত ১০টি ম্যাচ খেলে, ১২টি উইকেট শিকার করেছেন তিনি। টুর্নামেন্টের সেরা উইকেট শিকারি বোলারদের তালিকায় সেরা দশেও আছে মাশরাফির নাম। সিলেটের বোলিং বিভাগেও ভরশার নাম তিনি।

এদিকে বাকি ম্যাচগুলোতে মাশরাফি খেলতে না পারলে, তার নেতৃত্বও মিস করবে সিলেট। কারণ, এতদিন ‘ক্যাপ্টেন ফ্যান্টাসটিক’র নেতৃত্বে খেলে দূরন্ত গতিতে ছুটে চলছে সিলেট। ইতোমধ্যে সবার আগে প্লে – অফে খেলাও নিশ্চিত করে ফেলেছে চায়ের রাজ্যের দলটি। মূলত মাশরাফির হাত ধরেই এবারের বিপিএলে বদলে যাওয়া এক সিলেটের দেখা মিলছে। এর আগের কোনো আসরে, এমন সাফল্য পায়নি দলটি।

আরো আজকের ট্রেন্ডিং

আইপিএল ২০১৩-এ মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের আধিপত্য: গোল্ড ব্রিলিয়ান্স দিয়ে জয়ের সিলমোহর!

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) ২০১৩ মরসুমে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের আধিপত্য প্রদর্শনের সাক্ষী ছিল, ফাইনাল ম্যাচে তাদের বিজয়ী জয়ের সমাপ্তি ঘটে। তাদের গতিশীল অধিনায়ক, রোহিত শর্মার নেতৃত্বে, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে...

আইপিএল ২০১২-এ কলকাতা নাইট রাইডার্সের রাজত্ব সর্বোচ্চ: গোল্ড ব্রিগেডের জন্য একটি ঐতিহাসিক জয়!

আইপিএল ২০১২-এ কলকাতা নাইট রাইডার্সের রাজত্ব সর্বোচ্চ: গোল্ড ব্রিগেডের জন্য একটি ঐতিহাসিক জয়! ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ইতিহাসে, ২০১২ মৌসুম একটি ঐতিহাসিক অধ্যায় হিসেবে দাঁড়িয়েছে, বিশেষ করে কলকাতা নাইট রাইডার্সের...

চেন্নাই সুপার কিংস ক্লিঞ্চ আইপিএল ২০১১ মুকুট: ইয়েলো টাইটানদের জন্য ব্যাক-টু-ব্যাক গ্লোরি!

চেন্নাই সুপার কিংস ক্লিঞ্চ আইপিএল ২০১১ মুকুট: ইয়েলো টাইটানদের জন্য ব্যাক-টু-ব্যাক গ্লোরি! প্রত্যাশাকে অস্বীকার করে এবং শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বিতা কাটিয়ে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ইতিহাসের ইতিহাসে, ২০১১ মরসুম একটি স্মরণীয় অধ্যায়,...

আইপিএল ২০১০-এ চেন্নাই সুপার কিংসের জয়: হলুদ ব্রিগেডের জন্য একটি গৌরবময় বিজয়!

২০১০ সালটি ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) একটি ঐতিহাসিক মুহূর্ত হিসাবে চিহ্নিত হয়েছিল যখন চেন্নাই সুপার কিংস মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে একটি রোমাঞ্চকর ফাইনাল শোডাউনে তাদের প্রথম শিরোপা জিতেছিল। ক্যারিশম্যাটিক মহেন্দ্র সিং...