Skip to main content

ম্যাচ হাইলাইটস

ক্রিকেট হাইলাইটস, ১৭ জুলাই: শ্রীলঙ্কা বনাম পাকিস্তান (১ম টেস্ট – ২য় দিন)

শ্রীলঙ্কা বনাম পাকিস্তান

শ্রীলঙ্কা বনাম পাকিস্তান (প্রথম টেস্ট – ২য় দিন)

শ্রীলঙ্কাকে ২২২ রানে বেধে ফেলার পর সবাই ভেবেছিল, রানের পাহাড়ে চড়বে পাকিস্তান। কিন্তু সবাই ভাবে এক, হয় আরেক। ব্যাট করতে নেমে দারুণ ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে পাকিস্তানিরা। ৭৩ রানে নেই ৫ উইকেট, ৮৫ রানে নেই ৭ উইকেট। ১৪৮ রানে পড়ে যায় ৯ উইকেট।

এরপর শেষ উইকেট জুটিতে ৩০.৫ ওভারে ৭০ রানের অসাধারণ জুটি গড়ে তোলেন বাবর আজম এবং নাসিম শাহ। এর মধ্যে ১১ নম্বর ব্যাটার নাসিম ৫২ বলে ৫ রান করে অপরাজিত থাকেন। বাকি বলগুলো মোকাবেলা করলেন বাবর আজম।

শুধু তাই নয়, লঙ্কান বোলিংয়ে পাকিস্তানি ব্যাটিং লাইনআপে যে ধ্বংসস্তুপ তৈরি হয়েছিল, সেখানে দাঁড়িয়ে অনবদ্য এক সেঞ্চুরি উপহার দিলেন বাবর। ২৪৪ বল মোকাবেলা করে তিনি যখন শেষ ব্যাটার হিসেবে আউট হলেন তখন তার নামের পাশে শোভা পাচ্ছে ১১ চার ২ ছক্কায়, ১১৯ রান। এর আগে চতুর্থ উইকেটে দলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪০ রানের জুটি গড়ে তুলে ছিলেন বাবর এবং মোহাম্মদ রিজওয়ান।

ফলে গলে শ্রীলঙ্কার ২২২ রানের জবাবে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ২১৮ রানে অলআউট হয় পাকিস্তান। যেখানে বড় লিডের স্বপ্ন দেখছিল লঙ্কানরা, সেখানে তারা লিড পেলো মাত্র ৪ রানের। পাকিস্তানের ২১৮ রানের মধ্যে একাই ১১৯ রান করলেন বাবর। বাকিরা সবাই মিলে করলেন ৯৯ রান।

ক্যারিয়ারে এটা বাবরের ৭ম টেস্ট সেঞ্চুরি। তবে একের পর এক ম্যাচে যেভাবে ব্যাটিং করে যাচ্ছেন পাকিস্তান অধিনায়ক, তাতে এরই মধ্যে কিংবদন্তির কাতারে তার নাম লিখে দিতে শুরু করেছে ক্রিকেট বোদ্ধারা। পাকিস্তানি ইনিংসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান ছিল রিজওয়ানের (১৯)। ১৮ রান করেন ইয়াসির শাহ, ১৭ রান আসে হাসান আলির ব্যাট থেকে।

দ্রতই বল হাতে ঝলসে ওঠেন সদ্য অস্ট্রেলিয়াকে নাকানি-চুবানি খাওয়ানো বাঁহাতি স্পিনার প্রবাথ জয়াসুরিয়া। লঙ্কানদের প্রথম ৭ উইকেটের ৫টিই তিনি শিকার করেন। এর মাধ্যমে নিজের ক্যারিয়ারের প্রথম তিন ইনিংসেই ৫ উইকেট পেলেন জয়াসুরিয়া। এমন রেকর্ড তার আগে করেছিলেন মাত্র দুজন ক্রিকেটারঅস্ট্রেলিয়ার ক্ল্যারি গ্রিমেট ও ইংল্যান্ডের টম রিচার্ডসন।

আজ দিনের তৃতীয় বলেই সঙ্গী আজহার আলীকে (৩) হারান বাবর, এরপর তাঁকে এক প্রান্তে অসহায় দর্শক হিসেবে রেখে রিজওয়ান, মোহাম্মদ নওয়াজরা (৫) যেন বিদায়ের মিছিলে নামেন। দলের ব্যর্থতার মাঝে এক প্রান্ত আগলে রেখেছিলেন বাবর। ২১ রান করতেই তিনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১০ হাজার রানের মাইলফলক ছুঁয়ে ফেলেন।

৮৫ রানেই ৭ উইকেট হারায় পাকিস্তান। মধ্যাহ্নবিরতিতে যাওয়ার সময় রান ৭ উইকেটে ১০৪, বাবরের রান তখন ৩৪। অষ্টম উইকেটে বাবরের সঙ্গে ইয়াসিরের জুটিটা হলো ২৭ রানের, নবম উইকেটে হাসানের সঙ্গে ৩৬ রানের। তার মানে, শেষ তিনটি জুটিতে নিচের সারির তিন ব্যাটসম্যানকে নিয়ে বাবর পাকিস্তানকে এনে দিয়েছেন ১৩৩ রান।

ইনিংসের ৬০তম ওভারের শেষ বলে হাসান আউট হওয়ার কিছুক্ষণ আগেই ফিফটি পেয়েছেন বাবর (৯৮ বল, ৫ চার)। এরপর ধীর গতিতেই এগিয়েছেন বাবর ও নাসিম, জুটিতে প্রথম ১৬ ওভারে এসেছে ২৪ রান। ৮৪ ওভার শেষে ৯ উইকেটে ১৯৪ রান নিয়ে চা বিরতিতে যায় পাকিস্তান।

চা বিরতির পর অবশ্য সেঞ্চুরি পেতে সময় লাগেনি বাবরের। বিরতি থেকে ফিরে দ্বিতীয় বলেই চার মারলেন মহীশ তিকশানার বলে, তাঁর ইনিংসের দশম চার। এর পরের বলেই সিঙ্গেল। সেঞ্চুরি!  এরপর বেশিক্ষণ অবশ্য আর উইকেটে টিকতে পারেননি বাবর। জয়াসুরিয়ার দুই ওভারে একটি করে চার ও ছক্কা মেরেছেন, আগ্রাসনের ইঙ্গিত ছিল তাঁর ব্যাটে।

কিন্তু ৯১তম ওভারে তিকশানা’র বলে লেগ বিফোরে ফাঁদে পড়ে এলবিডব্লু হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরেন বাবর। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি তিনি। লঙ্কানদের হয়ে জয়াসুরিয়া ছাড়াও ২টি করে উইকেট তুলে নেন রমেশ মেন্ডিস ও মহীশ তিকশানা। এছাড়া কাসুন রাজিথা ১টি উইকেট নেন।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৩৩ রানে মোহাম্মদ নওয়াজের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফিরেন লঙ্কান অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে (১৬)। তবে এরপর আর কোন বিপদ ঘটতে দেয়নি স্বাগতিকরা। ১১.৫ ওভারে ৩৬ রান তুলে সফরকারীদের থেকে ৪০ রানে এগিয়ে থেকে দিন শেষ করেছে শ্রীলঙ্কা। ওপেনার ওশাদা ফার্নান্দো ১৭ এবং নাইটওয়াচ ম্যান রাজিথা ৩ রানে অপরাজিত আছেন।


শ্রীলঙ্কা বনাম পাকিস্তান এর স্কোরবোর্ড

শ্রীলঙ্কা (১ম ইনিংস) – ২২২/১০ (৬৬.১)

পাকিস্তান (১ম ইনিংস) – ২১৮/১০ (৯০.৫)

শ্রীলঙ্কা (২য় ইনিংস) – ৩৬/১ (১১.৫)


শ্রীলঙ্কা বনাম পাকিস্তান


শ্রীলঙ্কা বনাম পাকিস্তান ম্যাচের একাদশ

শ্রীলঙ্কা দিমুথ করুনারত্নে (অধিনায়ক), নিরোশান ডিকভেলা (উইকেট রক্ষক), কুশল মেন্ডিস, ওশাদা ফার্নান্দো, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস, দিনেশ চান্ডিমাল, রমেশ মেন্ডিস, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা, মহীশ তিকশানা, কাসুন রাজিথা, এবং প্রবাথ জয়াসুরিয়া।
পাকিস্তান বাবর আজম (অধিনায়ক), মোহাম্মদ রিজওয়ান (উইকেট রক্ষক), আবদুল্লাহ শফিক, আজহার আলী, আগা সালমান, মোহাম্মদ নওয়াজ, ইমাম-উল-হক, ইয়াসির শাহ, শাহিন আফ্রিদি, হাসান আলী, এবং নাসিম শাহ।

আরো ব্লগ

টি-টোয়েন্টিতে বাবরের নতুন মাইলফলক

গত এশিয়া কাপে ঠিক ছন্দে ছিলেননা বাবর আজম। একেবারেই হাসেনি পাকিস্তান অধিনায়কের ব্যাট। তার ব্যাটিং নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে পাকিস্তান ক্রিকেটে।  তবে ছন্দে ফিরতে খুব বেশি সময় নেননি এই ব্যাটার।  ঘরের মাঠে...

ঘরের মাঠে শিরোপা ধরে রাখার লড়াই শুরু নিগারদের

১ অক্টোবর শুরু হচ্ছে নারী এশিয়া কাপ। সংযুক্ত আরব আমিরাতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাই পর্বের চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের এশিয়া কাপের মূল পর্বের মিশন শুরু আজ থেকে। ঘরের মাঠে থাইল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে...

স্লোয়ার বলে সেরাদের তালিকায় মুস্তাফিজ

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আগমনের পর থেকেই বল হাতে দ্যুতি ছড়িয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান। কাটার-স্লোয়ারে ব্যাটসম্যানদের নাভিশ্বাস করে তুলতে, বাংলাদেশি পেসারের জুড়ি মেলা ভার। এবার ক্রিকেট ভিত্তিক ওয়েবসাইট ইএসপিএনক্রিকইফোর তৈরি, টি-টোয়েন্টিতে সেরা স্লোয়ার...

বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হতে চান রিয়াদ

এশিয়া কাপে ব্যর্থ হওয়ার পর টিম বাংলাদেশে অনেক কিছুর রদবদল হয়েছে। সাফল্যের খোজে মরিয়া বিসিবি এশিয়া কাপ খেলতে যাওয়ার আগে টি টোয়েন্টি অধিনায়ক রিয়াদকে সরিয়ে দায়িত্ব দেয় সাকিবকে। তবে এশিয়া...