ব্লগ

ক্রিকেট হাইলাইটস, ২৭ জুলাই: শ্রীলঙ্কা বনাম পাকিস্তান (২য় টেস্ট – ৪র্থ দিন)

শ্রীলঙ্কা বনাম পাকিস্তান

শ্রীলঙ্কা বনাম পাকিস্তান (দ্বিতীয় টেস্ট – ৪র্থ দিন)

৫০৮ রানের বিশাল লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে চতুর্থ দিন শেষে ১ উইকেট হারিয়ে ৮৯ রান করেছে সফরকারী পাকিস্তান। আউট হয়ে গেছেন, গলে প্রথম টেস্টে পাকিস্তানকে জয় এনে দেয়ার নায়ক আবদুল্লাহ শফিক। মাত্র ১৬ রান করে প্রবাথ জয়াসুরিয়ার শিকার হয়ে তিনি সাজঘরে ফিরে গেছেন।

পঞ্চম দিন জিততে হলে সফরকারীদের করতে হবে আরও ৪১৯ রান। হাতে আছে ৯ উইকেট। আর ড্র করতে হলে ক্রিজ আঁকড়ে পড়ে থাকতে হবে। পঞ্চম দিনে ব্যাট করতে হবে পুরো দিন।

এর আগে ৫ উইকেটে ১৭৬ রান নিয়ে তৃতীয় দিনের খেলা শেষ করেছিল শ্রীলঙ্কা। তবে চতুর্থ দিন স্বাগতিকদের বড় লিডের দিকে এগিয়ে নিয়ে যান অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে ও ধনঞ্জয়া ডি সিলভা। এই দুজনের জুটিতে লিডটা দ্রুতই বড় করে ফেলে লঙ্কানরা।

দ্বিতীয় সেশনে শ্রীলঙ্কা নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণার আগে করুনারত্নের সঙ্গে ১২৬ রানের জুটি গড়েন ডি সিলভা। ১০৫ বলে ৬১ রান করেন করুনারত্নে। এরপর রমেশ মেন্ডিসের সঙ্গে ১০২ বলে ৮২ রানের জুটি গড়ে তোলেন ডি সিলভা। এ জুটিতে দুজনেই দ্রুত রান তোলার চেষ্টা করেন। মেন্ডিস ৫৪ বলে ৪৫ রান করে অপরাজিত থাকেন।

মধ্যাহ্ন বিরতি থেকে ফিরে এসে টেস্ট ক্যারিয়ারে নিজের নবম শতক তুলে নেন ডি সিলভা। ১৬ চারে, ১৭১ বলে ১০৯ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। দ্বিতীয় সেশনে আরও এক ঘণ্টা ব্যাট করে ৮ উইকেটে ৩৬০ রান তুলে নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে লঙ্কানরা। পাকিস্তানের পক্ষে নাসিম শাহ ও মোহাম্মদ নওয়াজ ২টি করে এবং আঘা সালমান, ইয়াসির শাহ ও নোমান আলী ১টি করে উইকেট তুলে নেন।

৫০৮ রানের অসম্ভব লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১ উইকেট হারিয়ে ৮৯ রান নিয়ে চতুর্থ দিনের খেলা শেষ করেছে পাকিস্তান। এই লক্ষ্য তাড়া করতে হলে পাকিস্তানকে টেস্ট ইতিহাসের সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড গড়তে হবে।

টেস্টে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি রান তাড়া করে জেতার রেকর্ড ওয়েস্ট ইন্ডিজের। ২০০৩ সালে ত্রিনিদাদে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৪১৮ রান তাড়া করে জিতেছিল তারা। স্বাভাবিকভাবেই গলে টেস্টের শেষ দিনে এত রান তাড়া করার ঝুঁকি সম্ভবত নেবে না পাকিস্তান। হাতে থাকা ৯ উইকেট কাজে লাগিয়ে কাল শেষ দিনটা কোনোভাবে কাটিয়ে দিয়ে ড্র করাই হবে লক্ষ্য। 

তবে পাকিস্তানের জয় অথবা ড্র এর পথের আর এক প্রতিপক্ষ হবে আবহাওয়া। কেননা টেস্টে দিন প্রতি মোটামুটি খেলা হয় ৯০ ওভার। কিন্তু প্রথম দিনে খেলা হয়েছে ৮৬ ওভার, দ্বিতীয় দিনে ৮৬.৪ ওভার এবং তৃতীয় দিনে আলোকস্বল্পতার জন্য খেলা হয় মাত্র ৬৯ ওভার। আলোকস্বল্পতা ৪র্থ দিনও পুরো সময় খেলা হতে দেয়নি।

৪র্থ দিন মোট খেলা হয়েছে ৬৯.৫ ওভার। এর মধ্যে পাকিস্তান নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ৫০৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে খেলেছে ২৮ ওভার। ৮০ বলে ৪৬ রান করে অপরাজিত আছেন ইমাম-উল-হক। ৩৮ বলে ২৬ রান নিয়ে অন্য প্রান্ত ধরে রেখেছেন পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজম।

এদিকে, প্রথম টেস্ট জিতে সিরিজে এমনিতে এগিয়ে আছে পাকিস্তান। এই টেস্ট অন্তত ড্র করতে পারলেই সিরিজ নিশ্চিত হয়ে যাবে তাদের।


শ্রীলঙ্কা বনাম পাকিস্তান এর স্কোরবোর্ড

শ্রীলঙ্কা (১ম ইনিংস) – ৩৭৮/১০ (১০৩.০)

পাকিস্তান (১ম ইনিংস) – ২৩১/১০ (৮৮.১)

শ্রীলঙ্কা (২য় ইনিংস) – ৩৬০/৮ (ডি) (৯১.৫)

পাকিস্তান (২য় ইনিংস) – ৮৯/১ (২৮.০)


শ্রীলঙ্কা বনাম পাকিস্তান


শ্রীলঙ্কা বনাম পাকিস্তান ম্যাচের একাদশ

শ্রীলঙ্কা দিমুথ করুনারত্নে (অধিনায়ক), নিরোশান ডিকভেলা (উইকেট রক্ষক), কুশল মেন্ডিস, ওশাদা ফার্নান্দো, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা, রমেশ মেন্ডিস, দিনেশ চান্ডিমাল, প্রবাথ জয়াসুরিয়া, অসিথা ফার্নান্দো, এবং ডুনিথ ওয়েলালাই
পাকিস্তান বাবর আজম (অধিনায়ক), মোহাম্মদ রিজওয়ান (উইকেট রক্ষক), আবদুল্লাহ শফিক, ফাওয়াদ আলম, আগা সালমান, ইমাম-উল হক, মোহাম্মদ নওয়াজ, নোমান আলী, হাসান আলী, ইয়াসির শাহ এবং নাসিম শাহ।

আরো ব্লগ