আজকের ট্রেন্ডিং

কোহলিকে বাদ দেয়ার মত নির্বাচক ভারতে জন্ম নেয়নি : রশিদ লতিফ

No selector born in India to drop Kohli

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে ভারত। সেই লক্ষ্যে ইতিমধ্যেই দল ঘোষণাও করেছে বিসিসিআই। সেই সিরিজের দলে রাখা হয় নি বিরাট কোহলি ও জাসপ্রিত বুমরাহকে। দুজনকে বাদ দেয়ার কোন কারণ অবশ্য বোর্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয় নি। 

বুমরাহর ক্ষেত্রে ব্যাপারটি বিশ্রাম বলেই ধরে নেয়া হচ্ছে। কেননা সাম্প্রতিক সময়ে তার পারফরম্যান্স নিয়ে কোন প্রশ্ন নেই, দলের সেরা পেসার তিনি। তবে বিপত্তি ঘটেছে বর্তমান সময়ে ফর্মে না থাকা সাবেক অধিনায়ক কোহলিকে নিয়ে। অনেকেই বলছেন, পারফর্ম করতে না পারায় কোহলিকে দল থেকে বাদ দিয়েছেন নির্বাচকেরা। কাঁটা তারের ওপার থেকে এই বিতর্কে যোগ দিয়েছেন সাবেক পাকিস্তানি অধিনায়ক রশিদ লতিফ। 

‘কট বিহাইন্ড’ নামক ইউটিউব চ্যানেলে দেয়া সাক্ষাৎকারে রশিদ স্রেফ উড়িয়েই দিলেন কোহলিকে বাদ দেওয়ার গুঞ্জন। সাবেক এই উইকেট কিপার বরং প্রশ্ন তুললেন দলের অন্যদের পারফরম্যান্স নিয়ে। পাশাপাশি জানালেন, কোহলিকে বাদ দেয়ার মতো নির্বাচকের নাকি জন্মই হয়নি ভারতে।

রশিদ লতিফ বলেন, ‘ভারতে ঐ নির্বাচকের এখনও জন্মই হয়নি যে বিরাটকে বাদ দিতে পারে। আর সত্যি বলতে, বিরাটকে বলির পাঁঠা বানিয়ে ভারতীয় দল বেঁচে যাচ্ছে। ২০১৯ বিশ্বকাপের দিকে তাকান, গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দেখুন। বিরাট নাহয় পারফর্ম করতে পারেনি, অন্যরা কি করেছে?’

বিশ্ব ক্রিকেটে এখনো আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে কোহলির ফর্মহীনতা। প্রায় সবাই বলছেন, কোহলির এই ফর্মহীনতার কারণটা আসলে মনস্তাত্ত্বিক। তবে এ ক্ষেত্রে রশিদের পর্যবেক্ষণ ভিন্ন। তিনি বলছেন, কোহলির সমস্যাটা ট্যাকনিক্যাল। 

রশিদ লতিফ বলেন, ‘কোহলির সমস্যা মানসিক নয়, টেকনিক্যাল। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে সে ইনিংস কীভাবে শুরু করেছে, খেয়াল করে দেখুন। শুরুতে একটি স্ট্রেট ড্রাইভ খেলেছে, এরপর অনড্রাইভ ও পরে কাভার ড্রাইভ খেলেছে। বলগুলির লেংথ দেখুন, সবগুলিই ছিল ফুল লেংথ, বিরাট যা স্বস্তিতে খেলতে পেরেছে। কিন্তু যেটিতে আউট হয়েছে, সেটির লেংথ একটু টেনে করা হয়েছে এবং পিচ করে বল বাইরে বেরিয়ে গেছে। ওই বলটি কাট করা উচিত ছিল, কিন্তু কোহলি এই শট খেলেলেন না।

রশিদ লতিফ আরো বলেন ” সে সবসময় সামনের পায়ে পুরো ভর দিয়ে খেলে। তাই ফুল লেংথ বল খেলতে তার সমস্যা হয় না। কিন্তু লেংথ একটু টেনে করলেই তার ব্যালান্স নষ্ট হয়। মোমেন্টামের সঙ্গে তার শরীর সামনে এগিয়ে যায়, তাতে স্বাভাবিকভাবেই বলের লেংথ একটু খাটো হলে এবং বল চোখের রেখার বাইরে চলে গেলে সে সামলাতে হিমশিম খায়। ব্যাটিং কোচ বিক্রম রাঠোর ও প্রধান কোচ রাহুল দ্রাবিড়কে কাজ করতে হবে এটা নিয়ে।’

আরো আজকের ট্রেন্ডিং