ব্লগ

ক্রিকেট হাইলাইটস, ২৯ জুলাই: ওয়েস্ট ইন্ডিজ বনাম ভারত (১ম টি২০)

ওয়েস্ট ইন্ডিজ বনাম ভারত

ওয়েস্ট ইন্ডিজ বনাম ভারত (১ম টি২০) – হাইলাইটস

ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে ওডিআই সিরিজটি দাপটের সঙ্গে জিতেছে ভারত। এবার টি-টোয়েন্টি সিরিজেও স্বাগতিকদের বিপক্ষে জয়ে শুরু করলো সফরকারীরা। ত্রিনিদাদে ব্রায়ান লারা স্টেডিয়ামে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৬৮ রানের বড় জয় পেয়েছে রোহিত শর্মার দল।

ওডিআই সিরিজে বিশ্রাম নেওয়ার পর টি-টোয়েন্টি সিরিজে দলে ফিরেছিলেন রোহিত, ঋষভ পন্থ, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, এবং দিনেশ কার্তিকরা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে রোহিত ও কার্তিকের দাপটেই সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেল ভারত।

টসে জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন ক্যারিবীয় অধিনায়ক নিকোলাস পুরান এবং ম্যান ইন ব্লুদের ব্যাটিং করতে পাঠান। টসে হেরে প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে ভারতকে ভালো শুরু এনে দেন দুই ওপেনার রোহিত ও সূর্যকুমার যাদব। দুজন মিলে ওপেনিং জুটিতে ৪.৪ ওভারে তোলেন ৪৪ রান। সূর্যকুমার ১৬ বলে ২৪ রান করে আউট হলে ভাঙে জুটি।

এরপর উইকেটে আসেন শ্রেয়াস আইয়ার। কিন্তু তিনি রানের খাতা খোলার আগেই পেসার ওবেদ ম্যাককয়ের শিকার হয়ে সাজঘরে ফিরে যান। এরপর উইকেট রক্ষক ব্যাটার ঋষভ পন্ত ও অল-রাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়াও খুব বেশি সুবিধা করতে পারেননি। পন্ত ১৪ রান এবং হার্দিক মাত্র ১ রান করেন।

তবে এক প্রান্ত আগলে রেখে রান তুলে গেছেন অধিনায়ক রোহিত। জেসন হোল্ডারের বলে হেটমায়ারকে ক্যাচ দেওয়ার আগে ৪৪ বলে ৬৪ রান করেছেন তিনি। মেরেছেন ৭টি চার ও ২টি ছয়। তাঁর বিদায়ের এক ওভার পর প্যাভিলিয়নে ফিরেন আর এক অল-রাউন্ডার রবীন্দ্র জাদেজা (১৬)।

তখন ১৬ ওভার শেষে ভারতের সংগ্রহ ছিল ৬ উইকেটে ১৩৮ রান। ২০ ওভার শেষে স্কোরবোর্ডের চেহারা গেল পাল্টে। আর কোনো উইকেট পড়েনি ভারতের। কিন্তু রান হয়ে গেল ১৯০। এটা সম্ভবই হয়েছে ৭ নম্বরে নামা কার্তিকের ১৯ বলে অপরাজিত ৪১ রানের ইনিংসের সৌজন্যে। কার্তিক এই রান তুলেছেন ৪টি চার ও ২টি ছয়ে। শেষ চার ওভারে অশ্বিনের সাথে তিনি অবিচ্ছিন্ন ৫২ রানের জুটি গড়ে তোলেন।

যার সুবাদে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেটে হারিয়ে ১৯০ রানের বড় স্কোর সংগ্রহ করে সফরকারীরা। অশ্বিন ১০ বলে ১৩ রান করে অপরাজিত ছিলেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে আলজারি জোসেফ সর্বাধিক ২টি উইকেট শিকার করেন। এছাড়া আকিল হোসেন, ওবেদ ম্যাককয়, কিমো পল ও জেসন হোল্ডার ১টি করে উইকেট তুলে নেন।

১৯১ রানের বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ইতিবাচক শুরু করেছিল স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ভুবনেশ্বর কুমারের করা প্রথম ওভারেই ১১ রান তুলে নেন দুই ওপেনার শামারহ ব্রুকস ও কাইল মায়ার্স। আর্শদীপের করা দ্বিতীয় ওভারের প্রথম তিন বলে আসে ১১ রান। এমন শুরু করেও শেষ পর্যন্ত খেই হারিয়েছে স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

দলের হাল ধরতে ব্যর্থ হন মায়ার্স (১৫), পুরান (১৮), রোভম্যান পাওয়েল (১৪) ও আট মাস পর দলে সুযোগ পাওয়া শিমরন হেটমায়ারের (১৪) মতো হার্ডহিটাররা। যার ফলশ্রুতি, ৮ উইকেটে ১২২ রানে থেমে যায় ক্যারিবীয়দের ইনিংস। ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে সর্বোচ্চ ২০ রান করেন ব্রুকস এবং দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৯ রান করেন পেসার কিমো পল।

ওয়েস্ট ইন্ডিজকে আটকিয়ে রাখার পিছনে গুরত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখেন ভারতের তিন স্পিনার অশ্বিন, রবীন্দ্র জাদেজা ও রবি বিষ্ণোয়। এই তিন জন মিলেই ক্যারিবীয়দের ৫টি উইকেট তুলে নিয়েছেন। অশ্বিন, রবি বিষ্ণোয় এবং আর্শদীপ সিং ২টি করে উইকেট তুলে নেন। এছাড়া ভুবনেশ্বর কুমার এবং জাদেজা ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

তবে ১৯ বলে অপরাজিত ৪১ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে প্লেয়ার অফ দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হয়েছেন দিনেশ কার্তিক। সেন্ট কিটসের ওয়ার্নার পার্কে সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি আগামী সোমবার (১লা আগস্ট) অনুষ্ঠিত হবে।


ওয়েস্ট ইন্ডিজ বনাম ভারত এর স্কোরবোর্ড

ভারত১৯০/৬ (২০.০)

ওয়েস্ট ইন্ডিজ – ১২২/৮ (২০.০)

ফলাফল – ভারত ৬৮ রানে জয়ী

প্লেয়ার অফ দ্য ম্যাচ – দিনেশ কার্তিক


ওয়েস্ট ইন্ডিজ বনাম ভারত


ওয়েস্ট ইন্ডিজ বনাম ভারত ম্যাচের একাদশ

ওয়েস্ট ইন্ডিজ নিকোলাস পুরান (অধিনায়ক ও উইকেট রক্ষক), শামারহ ব্রুকস, রোভম্যান পাওয়েল, কাইল মায়ার্স, শিমরন হেটমায়ার, জেসন হোল্ডার, ওডিন স্মিথ, আকিল হোসেন, কিমো পল, ওবেদ ম্যাককয় এবং আলজারি জোসেফ।
ভারত রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), ঋষভ পন্ত (উইকেট রক্ষক), সূর্যকুমার যাদব, শ্রেয়াস আইয়ার, হার্দিক পান্ডিয়া, রবীন্দ্র জাদেজা, দিনেশ কার্তিক, রবি বিষ্ণোয়, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, ভুবনেশ্বর কুমার, এবং আর্শদীপ সিং।

আরো ব্লগ