ব্লগ

ক্রিকেট হাইলাইটস, ২৪ জুলাই: ওয়েস্ট ইন্ডিজ বনাম ভারত (২য় ওডিআই)

ওয়েস্ট ইন্ডিজ বনাম ভারত

ওয়েস্ট ইন্ডিজ বনাম ভারত (২য় ওডিআই) – হাইলাইটস

রবিবার ত্রিনিদাদের পোর্ট অব স্পেনে আগে ব্যাট করে শাই হোপের সেঞ্চুরির সুবাদে ৩১১ রানের সংগ্রহ দাঁড় করায় স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জবাবে ভারতের স্বীকৃত ব্যাটারদের খানিক নিষ্প্রভতার দিনে জ্বলে ওঠেন অক্ষর প্যাটেল। তার ঝড়ো ৬৪ রানের ইনিংসে দুই বল আগেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় সফরকারী ভারত।

আট উইকেট হারিয়ে পাওয়া এ জয়ের কল্যাণে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করেছে ভারত। পাশাপাশি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টানা ১২টি ওয়ানডে সিরিজ জিতে গড়েছে বিশ্বরেকর্ড। বিশ্বের আর কোনো দেশ নির্দিষ্ট কোনো দেশের বিপক্ষে টানা এতো সিরিজ জিততে পারেনি।

টসে জিতে ক্যারিবীয় অধিনায়ক নিকোলাস পুরান প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন এবং ম্যান ইন ব্লুদের ফিল্ডিং করতে পাঠান। ম্যাচের প্রথম ইনিংসে অনন্য রেকর্ডে নাম লেখান শাই হোপ। ক্যারিয়ারের ১০০তম ওয়ানডে খেলতে নেমে ক্যারিয়ারের ১৩তম সেঞ্চুরি হাঁকান এ ডানহাতি ওপেনার।

শাই হোপ আউট হন দলকে ঠিক ৩০০ রানের ঘরে পৌঁছে দিয়ে। ইনিংসে ৪৯তম ওভারে আউট হওয়ার আগে ৮ চার ও ৩ ছয়ের মারে ১৩৫ বলে ১১৫ রান করেন তিনি। বিশ্বের মাত্র দশম খেলোয়াড় হিসেবে ১০০তম ওয়ানডেতে সেঞ্চুরি করলেন হোপ।

হোপ ছাড়াও ক্যারিবীয়দের হয়ে ৭৭ বলে ৭৪ রানের ইনিংস খেলেন অধিনায়ক নিকোলাস পুরান। কাইল মায়ার্স টি-টোয়েন্টি মেজাজে ব্যাট করে ছয় বাউন্ডারি ও এক ছক্কার মারে ২৩ বলে ৩৯ রান করেন। এছাড়া শামারহ ব্রুকস ৩৬ বলে ৩৫ রান করেন। আর তাতেই নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ গিয়ে দাঁড়ায় ৬ উইকেটে ৩১১ রান।

ভারতের পক্ষে পেসার শার্দুল ঠাকুর ৭ ওভারে ৫৪ রান দিয়ে সর্বাধিক ৩টি উইকেট শিকার করেন। এছাড়া অক্ষর প্যাটেল, দীপক হুডা এবং যুজবেন্দ্রে চাহাল ১টি করে উইকেট তুলে নেন।

৩১২ রানের চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ৬৬ বলে ৪৮ রান তোলেন ওপেনার শুবমান গিল ও অধিনায়ক শিখর ধাওয়ান। ৪৩ রান করেন শুবমান ও ১৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন ধাওয়ান। এরপর সূর্যকুমার যাদব ৯ রান করে সাজঘরে ফিরলে দলের হাল ধরেন শ্রেয়াস আইয়ার এবং সঞ্জু স্যামসন। চতুর্থ উইকেটে এ দুজন মিলে ৯৪ বলে ৯৯ রানের জুটি গড়ে তোলেন।

শ্রেয়াস ৪ চার ও ১ ছক্কায়, ৭১ বলে ৬৩ রান করেন। অপরদিকে স্যামসন ৩ চার ও ৩ ছক্কায়, ৫১ বলে ৫৪ রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরেন। ভারতের জয়ের জন্য শেষ দশ ওভারে প্রয়োজন ছিল ঠিক ১০০ রান। ততক্ষণে সাজঘরে ফিরে গেছেন প্রথম পাঁচ ব্যাটার।

পরে ওভারপ্রতি দশ রানের মিশনে প্রথমে দীপক হুডার সঙ্গে ৩৩ বলে ৫১ রানের জুটি গড়েন অক্ষর। দীপক ৩৬ বলে ৩৩ রানে আউট হয়ে গেলে বাকি পথ একাই পাড়ি দেন অক্ষর। তখনও জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ৩৫ বলে ৫৬ রান। অক্ষরের ঝড়ে যা নেমে আসে ৬ বলে ৮ রানে।

শেষ ওভারের চতুর্থ বলে ছক্কা হাঁকিয়ে জয় নিশ্চিত করেন এ বাঁহাতি স্পিনিং অলরাউন্ডার। ক্যারিয়ারের প্রথম ওয়ানডে ফিফটি করে শেষ পর্যন্ত ৩৫ বলে ৬৪ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন অক্ষর। তার ইনিংসে ছিল তিন চারের সঙ্গে পাঁচটি ছয়ের মার।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে আলজারি জোসেপ ও কাইল মায়ার্স ২টি করে এবং জেডেন সিলস, রোমারিও শেফার্ড ও আকিল হোসেন ১টি করে উইকেট তুলে নেন। আগামী ২৭ জুলাই একই সময় ও একই ভেন্যুতে সিরিজের তৃতীয় ওডিআই ম্যাচে মুখোমুখি হবে এই দুই দল।


ওয়েস্ট ইন্ডিজ বনাম ভারত এর স্কোরবোর্ড

ওয়েস্ট ইন্ডিজ – ৩১১/৬ (৫০.০)

ভারত৩১২/৮ (৪৯.৪)

ফলাফল – ভারত ২ উইকেটে জয়ী

প্লেয়ার অফ দ্য ম্যাচ – অক্ষর প্যাটেল


ওয়েস্ট ইন্ডিজ বনাম ভারত


ওয়েস্ট ইন্ডিজ বনাম ভারত ম্যাচের একাদশ

ওয়েস্ট ইন্ডিজ নিকোলাস পুরান (অধিনায়ক), শাই হোপ (উইকেট রক্ষক), শামারহ ব্রুকস, কাইল মায়ার্স, ব্র্যান্ডন কিং, রোভম্যান পাওয়েল, রোমারিও শেফার্ড, আকিল হোসেন, আলজারি জোসেফ, হেইডেন ওয়ালশ এবং জেডেন সিলস।
ভারত শিখর ধাওয়ান (অধিনায়ক), সঞ্জু স্যামসন (উইকেট রক্ষক), শুবমান গিল, সূর্যকুমার যাদব, দীপক হুডা, শ্রেয়াস আইয়ার, অক্ষর প্যাটেল, মোহাম্মদ সিরাজ, শার্দুল ঠাকুর, যুজবেন্দ্র চাহাল, এবং আবেশ খান।

আরো ব্লগ