আজকের ট্রেন্ডিং

এবারের ঈদে কি কোরবানি দিবেন মুস্তাফিজ? 

What will Mustafiz sacrifice on this Eid?

ঈদ মানে আনন্দ, ঈদ মানে খুশি। মুসলমান ধর্মাবলম্বীদের জন্য উৎসবের দিনই হচ্ছে ঈদের দিন। ঈদ-উল-আযহায় সবার খুশির কেন্দ্রবিন্দুতেই থাকে পরিবারের সবাই মিলে হাটে যেয়ে পশু ক্রয় করা। তবে, এবার সেই খুশিতে সামিল হতে পারছেন না বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের কাটার মাস্টার মুস্তাফিজুর রহমান।

 দলের সঙ্গে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে থাকায় এবছর দেশের বাইরেই ঈদ করতে হবে এই বাঁহাতি পেসারকে। তবে, বাড়িতে না থাকলেও তিনি ঈদে গ্রামের বাড়ি সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার তেঁতুলিয়া গ্রামে দুটি গরু ও দুটি ছাগল কোরবানি দেবেন। ইতিমধ্যেই, সেই পশুগুলোও বাড়ি পৌঁছে গেছে।

কোরবানির ঈদের আমেজ যখন চারিদিকে বইছে তখন পরিবারের সাথে নেই ফিজ। এজন্য পরিবারের সদস্যদের মন খারাপ থাকলেও তাদের কাছেও সবার আগে দেশের দায়িত্ব। দেশের শীর্ষস্থানীয় একটি পত্রিকাকে মুস্তাফিজের ভাই মোকলেছুর রহমান পল্টু বলেন, ‘এবার ঈদে মোস্তাফিজের বাড়িতে ফেরার সম্ভাবনা নেই। তবে প্রতিদিনই বাড়িতে কথা বলে খোঁজখবর নেয় সে। এ বছর ঈদে মুস্তাফিজ দুটি গরু ও দুটি ছাগল কোরবানি করবে। কোরবানির পশুগুলো ইতোমধ্যে বাড়িতে এসে গেছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ঈদের সময় কাটাতে দূর-দূরান্ত থেকে বাড়িতে ছুটে আসেন সবাই। এবার ঈদে বড় ভাই মাহফুজুর রহমান মিঠু বাড়িতে আসবেন না। মুস্তাফিজও নেই। সব মিলিয়ে পরিবারের সব সদস্যদের একটু মন খারাপ রয়েছে। তবে এটা আমরা মেনে নিয়েছি।’

মুস্তাফিজের কাছের বন্ধু হাফিজুর রহমান হাফিজ গণমাধ্যমকে বলেছেন ‘আগামী ২০ তারিখে দেশে ফেরার কথা রয়েছে মুস্তাফিজের। তবে ঈদ তো সামনের ১০ জুলাই। এমনিতে ও থাকলে ঈদের সময় এক সঙ্গে আমরা খুব আনন্দ করে ঘুরে বেড়াই। তবে ও বাড়িতে না থাকায় এবার ঈদে সেই আনন্দ আর হচ্ছে না। আমি মুস্তাফিজের গরু ও ছাগলগুলো কোরবানির কাজে সহায়তা করে সময় কাটাব।’

আরো আজকের ট্রেন্ডিং