ব্লগ

ক্রিকেট হাইলাইটস, ২৮ জুলাই: ইংল্যান্ড বনাম দক্ষিন আফ্রিকা (২য় টি২০)

ইংল্যান্ড বনাম দক্ষিন আফ্রিকা

ইংল্যান্ড বনাম দক্ষিন আফ্রিকা (২য় টি২০)

বুধবার তিন ম্যাচের টি২০ সিরিজের ২য় টিতে মুখোমুখি হয়েছিল দক্ষিন আফ্রিকা এবং ইংল্যান্ড। ২য় টি২০ ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয়েছে সোফিয়া গার্ডেন, কার্ডিফে। রাইলি রুশো ও রেজা হেন্ড্রিক্সের ঝড়ো ব্যাটিং-এ একটি বিশাল লক্ষ্য তাড়া করার জন্য পায় ইংল্যান্ড। কিন্তু সেই লক্ষ্যে পৌছানোর আগেই গুটিয়ে যায় ইংল্যান্ড ফলে হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় তাদের। 

টসে জিতে প্রথমে দক্ষিন আফ্রিকাকে ব্যাটিংএ পাঠায় ইংল্যান্ড এবং বোলিং বেছে নেয় তারা। কার্ডিফে আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ২০৭ রানের বিশাল সংগ্রহ দাঁড় করায় দক্ষিণ আফ্রিকা। 

ব্যাট করতে নেমে প্রথমে উইকেটরক্ষক কুইন্টন ডি কক, মঈন আলির বলে ক্যাচ আউট হয়ে ফিরে যান ড্রেসিংরুমে। তিনি ১১ বলে করেন ১৫ রান এবং ২টি চারও মেরেছিলেন তিনি। এরপর দুর্দান্ত ব্যাটিং করে মাঠ ছাড়েন রেজা হেন্ড্রিক্স। রেজা হেন্ডরিকসের ব্যাট থেকে এসেছে ৩২ বলে ৫৩ রানের ইনিংস। তার ৫৩ রানের ইনিংসটি সাজানো ছিল ৩টি চার ও ২টি ছয় দিয়ে। রিচার্ড গ্লিসনের বলে ক্যাচ আউট হন তিনি।

১০ বলে ১৯ রান করে সাজঘরে ফিরে যান হেনরিখ ক্লাসেন। তিনি ১টি চার ও ১টি ছয় মেরেছিলেন। ক্রিস জর্ডানের বলে ক্যাচ আউট হন তিনি। 

প্রায় ছয় বছর পর দক্ষিণ আফ্রিকা দলে ফিরেছেন বাঁহাতি টপঅর্ডার ব্যাটার রাইলি রুশো। মাঝের ছয় বছর কলপ্যাক চুক্তিতে খেলেছেন ইংল্যান্ডের ঘরোয়া ক্রিকেট। সেই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ দিয়েই ফিরেছেন জাতীয় দলে, দেখিয়েছেন নিজের সামর্থ্য।

সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে অবশ্য হাসেনি রুশোর ব্যাটার। বৃহস্পতিবার রুশো একাই কাঁপিয়ে দিয়েছেন ইংল্যান্ডকে। তার ৫৫ বলে ৯৬ রানের অপরাজিত ইনিংসে ইংল্যান্ডকে ৫৮ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা, সিরিজে ফিরিয়েছে সমতা।

ম্যাচের প্রথম ইনিংসে চতুর্থ ওভারে উইকেটে গিয়ে আর আউটই হননি রুশো। ক্যারিয়ারসেরা ইনিংসে দশটি চার ও পাঁচটি বিশাল ছয়ের মার দিয়ে ৯৬ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। এছাড়া রুশোর সাথে ১২ বলে ১৫ রান করে অপরাজিত থাকেন ট্রিস্টান স্টাবস। ১টি ছয়ও মেরেছিলেন তিনি। 

জবাবে নিজেদের ২০ ওভার পুরো খেলতেও পারেনি ইংল্যান্ড। ইনিংসের ২০ বল বাকি থাকতেই ১৪৯ রানে গুটিয়ে যায় তারা। ওভারপ্রতি প্রায় সাড়ে ১০ রান করে তোলার লক্ষ্যে ইংল্যান্ডের প্রায় সব ব্যাটারই চালিয়ে খেলেছেন। কিন্তু কেউ উইকেটে টিকে থেকে বড় ইনিংস খেলতে পারেননি।

১৪ বলে ২৯ রান করেছেন অধিনায়ক এবং উইকেটরক্ষক জস বাটলার। তিনি ১টি চার ও ৩টি ছয় মেরেছিলেন। ৪ বলে ৫ রান করে মাঠ ছাড়েন মালান। ২২ বলে ২০ রান করেন জেসন রয়। তিনটি চার ও মেরেছিলেন তিনি। মঈন আলি করেন ১৭ বলে ২৮ রান। তিনিও ৩টি চার মেরেছিলেন। 

৩ বলে মাত্র ২ রান করেন স্যাম কুরান। চার চারের সাহায্যে ২১ বলে ৩০ রান করেন জনি বেয়ারস্টো। ১০ বলে ১৮ রান করেন লিয়াম লিভিংস্টোন। তিনটি চার ও ছিল তার সংগ্রহে। এছাড়া ক্রিস জর্ডান করেন ৫ রান। আদিল রশিদ করেন তিনি রান, গোল্ডেন ডাক মারেন রিচার্ড গ্লিসন এবং ১ বলে ১ রান করে অপরাজিত থাকেন রিস টপলে। 

দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে তিনটি করে উইকেট নেন তাবরাইজ শামসি ও আন্দিল ফেলুকায়ো। এছাড়া লুঙ্গি এনগিডি ২.৪ ওভারে মাত্র ১১ রান খরচায় নেন ২ উইকেট। তাদের তোপে পড়েই ১৬.৪ ওভারে গুটিয়ে যায় ইংলিশরা।


ইংল্যান্ড বনাম দক্ষিন আফ্রিকা এর স্কোরবোর্ড

ইংল্যান্ড১৪৯/১০ (১৬.৪)

দক্ষিন আফ্রিকা – ২০৭/৩ (২০.০)

ফলাফল – দক্ষিন আফ্রিকা ৫৮ রানে জয়ী 

প্লেয়ার অফ দ্য ম্যাচ – রাইলি রুশো


ইংল্যান্ড বনাম দক্ষিন আফ্রিকা


ইংল্যান্ড বনাম দক্ষিন আফ্রিকা ম্যাচের একাদশ

ইংল্যান্ড  জস বাটলার (অধিনায়ক এবং উইকেটরক্ষক), ডেভিড মালান, জেসন রয়, মঈন আলি, জনি বেয়ারস্টো, স্যাম কুরান, লিয়াম লিভিংস্টোন, আদিল রশিদ, ক্রিস জর্ডান, রিস টপলে, রিচার্ড গ্লিসন
দক্ষিন আফ্রিকা ডেভিড মিলার (অধিনায়ক), কুইন্টন ডি কক (উইকেটরক্ষক), রাইলি রুশো, রেজা হেন্ড্রিক্স, ট্রিস্টান স্টাবস, হেনরিখ ক্লাসেন, কাগিসো রাবাদা, আন্দিলে ফেহলুকওয়ায়ো, লুঙ্গি এনগিডি, কেশব মহারাজ, তাবরেজ শামসি

আরো ব্লগ